মঞ্চ নাটকের আধুনিকায়ন প্রয়োজন

মঞ্চ নাটককে একজন অভিনেতা বা অভিনেত্রীর জন্য অভিনয় শৈলীর মাপকাটি হিসেবে ধরা যেতে পারে। কারণ সরাসরি দর্শকদের সামনে নিজের অভিনয় প্রতিভা বা দক্ষতাকে তুলে ধরার এ রকম ক্ষেত্র অন্য কোনো মাধ্যমে অনুপস্থিত। টেলিভিশন নাটক কিংবা মুভিতে অভিনয়ের স্বার্থে একই দৃশ্যের অনেকবার দৃশ্যায়ন হতে পারে, যা মঞ্চে থাকে না। এখানে কোনো ভুল হলে সেই ভুলকেই সঠিক বলে অভিনয় চালিয়ে যেতে হয়। মাঝ পথে স্কৃপ্ট ভুলে যাওয়া বা কোন দৃশ্যের পর কোনটি হবে ভুল করলেও ভুল শোধরানোর কোনো ব্যবস্থা থাকে না। সেজন্য মঞ্চ নাটক অনেক বেশি প্রাণবন্ত হয়। ফলে দর্শকদেরও মঞ্চকে ঘিরে আলাদা রকমের আগ্রহ থাকে। অথচ আমাদের দেশে মঞ্চের বিকাশ যেভাবে হওয়ার কথা ছিল তা কিন্তু হচ্ছে না। বরং দিনকে দিন মঞ্চ নাটকের দর্শক সংখ্যা কমে যাচ্ছে। অনেকেই এজন্য ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার প্রসারকে দায়ী করেন। ঘরে বসে যে দর্শক নাটক উপভোগ করতে পারেন, কেনই বা তিনি কষ্ট করে থিয়েটারে গিয়ে নাটক দেখবেন- এ রকমই মন্তব্য অনেকের রয়েছে। এ ক্ষেত্রে বলা যেতে পারে মঞ্চ নাটকের যে আলাদা আবেদন রয়েছে তা টেলিভিশন নাটকে কিন্তু পুরোপুরি অনুপস্থিত। টেলিভিশন নাটকে কাহিনী ও দৃশ্যায়নের ভিন্নতা যে রকম থাকে, মঞ্চ নাটকে ভিন্নতা থাকে অন্য রকম। বিভিন্ন থিয়েটার গ্রুপের পরিবেশনায় একই নাটকের উপস্থাপনাতেও থাকে ভিন্নতা। আর এটিই মঞ্চ নাটকের মূল আকর্ষণ। সুতরাং মঞ্চ নাটকের দর্শক কমে যাওয়ার জন্য এখন যে বিষয়কে তুলে আনা যেতে পারে তা হলো মঞ্চ নাটকের আধুনিকতার অভাবকে। মঞ্চ নাটক আগের চেয়ে অনেক বেশি সাবলীল হয়েছে এ কথা যেমন সত্য, তেমনি আরো যতোটুকু সাবলীল হওয়ার কথা ছিল তা যেমন হয়নি তাও সত্য। আঞ্চলিক কথ্য ভাষা এক সময় লেখ্য হিসেবে ব্যবহৃত হতো না। অথচ এখন প্রায় সময়ই বিভিন্ন লেখক ও কবিদের লেখাতে আঞ্চলিক কথ্য ভাষার লেখ্য রূপ ব্যবহৃত হচ্ছে। এমনকি টেলিভিশন নাটক ও বাংলা মুভির ক্ষেত্রেও তা ব্যবহৃত হচ্ছে অহরহ। সাধারণ মানুষের কথ্য ভাষার মধ্যেও চলিত ভাষার নানা পরিবর্তন ঘটেছে। যেমন তুমি বুঝেছো না বলে অনেকেই বলেন, তুমি বুঝলা! আর এ বিষয়গুলো অন্যান্য ক্ষেত্রে যতোটা না ব্যবহার হচ্ছে ততোটাই কম ব্যবহার হচ্ছে মঞ্চ নাটকগুলোর স্কৃপ্টে। উপরন্তু বিদেশি কাহিনীর অনুবাদ ভিত্তিক স্কৃপ্টগুলো এতোটাই খাটি বাংলা চলিত রীতি মেনে অনুবাদ করা যে, সাধারণ দর্শকদের কাছেই তা দুর্বোধ্যই মনে হয়। সাধারণ মানুষের জীবনভিত্তিক স্কৃপ্ট তৈরি করলে মঞ্চ দর্শকদের কাছে তা আরো বেশি গ্রহণযোগ্যতা পাবে। পৌরণিক কাহিনী বা বিখ্যাত সাহিত্যিকদের কাহিনী অবলম্বন করে মঞ্চ নাটক তৈরির থিম কে পরিত্যাগ করে মঞ্চ নাটকের আধুনিকায়নের বিষয়টি সব সময়ই যেন অনুল্লেখ্য থেকেছে! পুরনো শেকড়কে খোজা ভালো, কিন্তু পুরনো শেকড়কে আকড়ে ধরে রাখা অবশ্যই ঠিক নয়। সুতরাং যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মঞ্চ নাটককে আরো বেশি আধুনিক ও সাবলীল করতে না পারলে মঞ্চের দর্শকদের ধরে রাখা বাস্তাবিকই কঠিন হবে।